1. rana.bdpress@gmail.com : admin :
  2. admin@dailychandpurjamin.com : mazharul islam : mazharul islam
  3. rmctvnews@gmail.com : adminbd :
শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ০৭:৩২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
নিখোঁজ সংবাদ নান্দাইলে সন্ত্রাসীদের হামলায় আহত প্রবীণ সাংবাদিক জালাল উদ্দীন মন্ডল খালিয়াজুরীতে সংসদ সদস্য সাজ্জাদুল হাসানের ঐচ্ছিক তহবিল থেকে অনুদান প্রদান নওগাঁয় ছেলের লাঠির আঘাতে প্রাণ গেলো বাবার নওগাঁয় নিজ বাড়ির সামনে খুন হলেন মাতব্বর নওগাঁয় ডিবি পুলিশের অভিযান ১০১ কজি গাঁজাসহ গ্রেফতার-২ ভূরুঙ্গামারীতে সিটি প্রেস ক্লাবের নবনির্বাচিত সভাপতি হলেন সাংবাদিক কাজল ও সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক রফিকুল নেত্রকোনায় জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে ১ টি বাড়ি ঘিরে রেখেছে পুলিশ পিস্তল উদ্ধার নওগাঁয় বজ্রপাতে তিন জনের মৃত্যু আমরা সবার ” সংগঠনের পক্ষ থেকে ৬০ টি পরিবারের মাঝে কৈ মাছ বিতরণ

অটোরিকশায় যাত্রী তোলা নিয়ে দুই গ্রামের সংঘর্ষ, আহত অর্ধশতাধিক

মিতালী রানী দাস
নিজস্ব প্রতিবেদক

 

 

নেত্রকোনার মোহনগঞ্জে অটোরিকশায় যাত্রী তোলাকে কেন্দ্র করে দুই গ্রামের মানুষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েছে। বুধবার সকাল থেকে ঝগড়ার সূত্রপাত হয়ে দুপুর গড়ায়। শুরু হয় ধাওযা-পাল্টা ধাওয়া। এরপরে ইট-পাটকেল ছোড়াছুড়ি করে কয়েক ঘণ্টাব্যাপী চলা সংঘর্ষে মোহনগঞ্জের বিরামপুর অটোস্ট্যান্ড এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। এসময় ইট-পাটকেল ছোড়াছুড়িতে প্রায় অর্ধশত মানুষ আহত হয়।

এছাড়ও প্রায় অর্ধশত দোকানপাট ভাঙচুর করে সংঘর্ষকারীরা। ৩০-৪০টি সিএনজি অটোরিকশা ভাঙচুর হয়েছে। পুলিশ পরিস্থিতি সামাল দিতে রাবার বুলেট ছোড়ে।
স্থানীয় ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, সকালে ময়মনসিংহ থেকে মোহনগঞ্জ পর্যন্ত লোকাল ট্রেনে এসে যাত্রীরা নামেন। পরে সুনমাগঞ্জের ধর্মপাশার কয়েক যাত্রী রিজার্ভ অটোরিকশা ভাড়া নিতে গেলে সিএনজি ও অটোরিকশার মালিকের মধ্যে কে যাত্রী নেবে, এই নিয়ে কথা কাটাকাটি শুরু হয়।

একপর্যায়ে ঝগড়া শুরু হলে স্ট্যান্ডের সিএনজি অটোরিকশার মালিকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়। এসময় উভয়পক্ষ গাড়ি ভাঙচুর করতে থাকে। একপর্যায়ে বিরামপুর ও বরকাশিয়া দুই গ্রামের মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে এই বিরোধ। ধীরে ধীরে দুই গ্রামবাসী সংঘর্ষে লিপ্ত হয়।

খবর পেয়ে পুলিশ আসে। কিন্তু ইট-পাটকেল ছোড়াছুড়ির জন্য সংঘর্ষের এলাকায় প্রবেশ করতে পারেন না তারা। পরে টিয়ারশেল ও রাবার বুলেট ছোড়ে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাব্বির আহমেদ আকুঞ্জি, মোহনগঞ্জ থানার ওসি মো. রফিকুল ইসলামসহ প্রশাসনের নেতৃবৃন্দ সংঘর্ষ থামানোর চেষ্টা করে।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মোতাহার হোসেন চৌধুরী জানান, তিনি অসুস্থ থাকায় বাড়িতে ছিলেন। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যাচ্ছেন। এদিকে মোহনগঞ্জ থানার ওসি মো. রফিকুল ইসলাম সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আগে সংঘর্ষ থামাই, পরে বলছি কতজন আহত।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাব্বির আহমেদ আকুঞ্জিও বলেন, আমরা সংঘর্ষস্থলেই রয়েছি পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে। শেষ হলে বলা যাবে।

এই বিভাগের আরো খবর
© All rights reserved © 2021 rmcnewsbd
Theme Developed BY Desig Host BD