1. rana.bdpress@gmail.com : admin :
  2. admin@dailychandpurjamin.com : mazharul islam : mazharul islam
  3. rmctvnews@gmail.com : adminbd :
বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:৩১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
লামায় এক চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ১২ ইউপি সদস্যের অনাস্থা বাবার মতো সাধারণ মানুষের পাশে থাকতে চাই, সাইফুল ডাকুয়া ৫২ বছর মামলার পর নিজের জায়গা ফেরত পেলেন প্রকৃত মালিক নওগাঁয় প্রকাশ্যে ঠিকাদারকে কুপিয়ে জখম মামলার একঘন্টার মধ্যে পুলিশের হাতে সেই শান্তসহ গ্রেপ্তার ২ প্রতারণা মামলায় কারাগারে যাওয়া প্রধান শিক্ষক বহিষ্কার বাকেরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ১১ প্রার্থীর মনোনয়ন দাখিল বিশ্বনাথে ‘দাদু ভাই ছইল মিয়া ফাউন্ডেশন’র পক্ষ থেকে ঈদ পুর্ণমিলনী সভা বাকেরগঞ্জে যৌতুক মামলায় স্বামীর সাজা হুমকির প্রতিবাদে স্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন মোহনগঞ্জ সরকারি কলেজে বর্ষবরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত বাকেরগঞ্জ জেলা পুনরুদ্ধারের দাবিতে মানববন্ধন

করোনা ও বয়সের ভাড়ে না খেয়ে দিন কাটাচ্ছেন গংগাচড়ার আঃলতিফ

এক অসহায় বৃদ্ধ আঃ লতিফ পিতাঃ মফিজ উদ্দিন বাড়ি রংপুর জেলার গংগাচড়া উপজেলার ৯নং নোহালী ইউনিয়ন এর ৬ নং ওয়ার্ড (রউফ চেয়ারম্যানের ব্রীজ সংলগ্ন) এর বাসিন্দা। বাড়ি/জমা/জমি/জায়গা কিছুই নেই থাকেন পালিত মেয়ে মাজেদার বাড়িতে।

মাজেদার স্বামী মারা গেছে দেড় বছর আগেই বর্তমানে অন্যের বাড়িতে কাজ করেই জীবন অতিবাহিত করতেছে। মাজেদা সর্বপ্রকার সরকারি সেবা/সাহায্য থেকেও বঞ্চিত হয়ে মানুষের দুয়ারে দুয়ারে ঘুরছেন দুবেলার খাবার জোগাড় করতে।

অসহায় বৃদ্ধ না পারে সম্মানের দিকে তাকিয়ে কারো কাছে হাত পেতে সাহায্য চাইতে না পারে ভিক্ষা করতে।
রাস্তার পাশে সারাদিন এই অবস্থায় বসে থাকে যদি আপন মনে কেউ কিছু দেয় এই আশায়। আজ বিকাল পর্যন্ত এভাবে বসে ছিলো রাস্তায় চলাচলকারী ২/১জন মানুষের কাছে ১০ টাকা পেয়েছে যা দিয়ে বিস্কুট কিনে খাচ্ছে সেই বৃদ্ধ।

বৃদ্ধ আঃলতিফ তার বয়স ৯০+ বছর। স্ত্রী মারা গেছেন অনেক আগে। নেই কোনো সন্তান, বাড়ি বা জমি।পালিত মেয়ের বাড়িতে নিয়েছেন আশ্রয় গেয়ালঘরের এক কোনায় মাটির ওপর কাঠ আর পুরাতন তোষকের ওপর শুয়ে রাত্রি জাপন করেন।

জানা গেছে, রংপুরের গংগাচড়া উপজেলার পশ্চিম কচুয়া গ্রামের মাজেদা খাতুন (পালিত মেয়ে) -র বাড়িতে বসবাস। মাজেদা সেই গ্রামের বিভিন্ন বাসায় কাজ করে অতিকষ্টে জীবন-যাপন করছেন।

মাজেদা সকাল হলেই বের হয়ে পড়েন বাড়ি থেকে। দিনভর গ্রামের বিভিন্ন স্থানে ভিক্ষা করে চলে বাবা (আঃলতিফ) ও মাজেদা (বিধবা) মেয়ের জীবন।

বয়সের ভারে ঠিকভাবে কথা বলতে না পারা আঃ লতিফ জানান, তার সন্তান, বাড়িঘর কিছু নাই। টাকা-পয়সার অভাবে খেতে পরতে পারি না। অসুখে ওষধ কিনে খেতে পারি না, অনেক সময় উপোষ থাকতে হয়।

তিনি বলেন, অসুস্থ শরীর নিয়েও রাস্তার পাশে বসে থাকেন ভিক্ষার আশায়,রাস্তায় চলাচলকারী লোকজন ২/৫ টাকা দিলে কোনমতে নাস্তা খেয়ে দিন পার করেন বৃদ্ধ লতিফ।

বৃদ্ধের পালিত মেয়ে মাজেদার স্বামীও মারা গেছে অনেক আগে তিনি বলেন,বিধবা ভাতার জন্য অনেক ঘুরেছি কিন্তু দেয় নি।

এই বিভাগের আরো খবর
© All rights reserved © 2021 rmcnewsbd
Theme Developed BY Desig Host BD