1. rana.bdpress@gmail.com : admin :
  2. admin@dailychandpurjamin.com : mazharul islam : mazharul islam
  3. rmctvnews@gmail.com : adminbd :
বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৫:০০ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
লামায় জীনামেজু টেকনিক্যাল ইনস্টিটিউট এর পক্ষ থেকে একুশে পদক প্রাপ্ত ড. জিনবোধি মহাথেরকে গনসংবর্ধনা প্রদান বান্দরবানের লামায় ধর্ষণের ঘটনায় পিতার যাবজ্জীবন কারাদণ্ডসহ লাখ টাকা জরিমানাবজ্জীবন পূর্ব বিরোধের জেরে স্কুল থেকে ফেরার পথে প্রধান শিক্ষকের ওপর হামলা, থানায় অভিযোগ নেত্রকোণায় ট্রাক চাপায় নারীর মৃত্যু বই মেলায় হেপি সরকারের প্রথম কাব্যগ্রন্থ “হৃদয়ের কাব্যকথা” ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের পাশ থেকে  অবৈধ দোকান গুঁড়িয়ে দিল প্রশাসন ২১ফ্রেবুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে একবেলা খাবারের আয়োজন মিজানুর রহমান আকন্দ টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজে অমর ২১ ফেব্রুয়ারি প্রভাতফেরী ও পুষ্পস্তবক অর্পন বাকেরগঞ্জে যথাযোগ্য মর্যাদায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন ইয়াংছা উচ্চ বিদ্যালয়ে মহান আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে

পুলিশ সুপারের মধ্যস্থতায় মোছাঃ শাপলা খাতুন ফিরে পেল তার সুখের সংসার

সোয়াইব ফিরে পেল পিতৃস্নেহ ।
মোছাঃ শাপলা খাতুন, পিতা-মৃত শরীফ শাহ, সাং-খাসকররা, থানা-আলমডাঙ্গা,জেলা-চুয়াডাঙ্গা এর সাথে অনুমান ০৯ বছর পূর্বে মোঃ নাজমুল আলম, পিতা-মোঃ মিনারুল শেখ, সাং-খাসকররা, থানা-আলমডাঙ্গা,জেলা-চুয়াডাঙ্গা এর ইসলামী শরীয়াহ মোতাবেক বিবাহ হয়। সংসার জীবনে তাদের সোয়াইব আহমেদ (০৫) নামের ফুটফুটে একটি সন্তান রয়েছে। বিয়ের কয়েক বছর পর হতে যৌতুকের দাবিতে মোঃ নাজমুল আলম তার স্ত্রী শাপলা খাতুনের সাথে পারিবারিক কলহে জড়িয়ে পড়ে। ধীরে ধীরে নাজমুল ও তার পরিবারের লোকজন শাপলা খাতুনকে শরিরীক ও মানসিক নির্যাতন শুরু করে। একপর্যায়ে নাজমুল ও তার পরিবারের লোকজন শাপলা খাতুনকে শারিরীক নির্যাতন করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। অসহায় শাপলা খাতুন তার সন্তানকে নিয়ে তার মাতার বাড়িতে আশ্রয় নেয়। পরবর্তীতে নাজমুল ও তার পরিবারের লোকজন শাপলা খাতুন ও তার পরিবারকে যৌতুক দেবার জন্য চাপ প্রয়োগসহ যৌতুক না দিলে তালাক দিবে বলে হুমকি দেয় এবং যৌতুক দিতে না পারলে স্বামীর বাড়িতে ফিরতে নিষেধ করে।

শাপলা খাতুন বিভিন্ন জায়গায় তার সমস্যার সমাধান চেয়ে যোগাযোগ করেও কোন সমাধান না পেয়ে। অবশেষে তার অসহায়ত্ব থেকে পরিত্রান পাওয়ার জন্য মান্যবর পুলিশ সুপার চুয়াডাঙ্গা মহোদয়ের নিকট আসেন। পুলিশ সুপার, চুয়াডাঙ্গা মহোদয় উক্ত বিষয়টির প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য তার কার্যালয়ে অবস্থিত “উইমেন সাপোর্ট সেন্টার’কে” দায়িত্ব দেন। দায়িত্ব প্রাপ্ত কর্মকর্তাগণ উভয় পক্ষকে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে হাজির করেন। পুলিশ সুপার, চুয়াডাঙ্গা জনাব মোঃ জাহিদুল ইসলাম এর প্রত্যক্ষ মধ্যস্থতায় মোঃ নাজমুল আলম তার স্ত্রী মোছাঃ শাপলা খাতুনের সাথে পুনরায় সংসার করতে ও সন্তানের ভরণ পোষন দিতে সম্মত হয়। অবশেষে পুলিশ সুপার, চুয়াডাঙ্গা জনাব মোঃ জাহিদুল ইসলাম এর হস্তক্ষেপে মোছাঃ শাপলা খাতুন ফিরে পেল তার সুখের সংসার ও সোয়াইব ফিরে পেল পিতৃস্নেহ ।

এই বিভাগের আরো খবর
© All rights reserved © 2021 rmcnewsbd
Theme Developed BY Desig Host BD