1. rana.bdpress@gmail.com : admin :
  2. admin@dailychandpurjamin.com : mazharul islam : mazharul islam
  3. rmctvnews@gmail.com : adminbd :
শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ০৬:৫৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
নিখোঁজ সংবাদ নান্দাইলে সন্ত্রাসীদের হামলায় আহত প্রবীণ সাংবাদিক জালাল উদ্দীন মন্ডল খালিয়াজুরীতে সংসদ সদস্য সাজ্জাদুল হাসানের ঐচ্ছিক তহবিল থেকে অনুদান প্রদান নওগাঁয় ছেলের লাঠির আঘাতে প্রাণ গেলো বাবার নওগাঁয় নিজ বাড়ির সামনে খুন হলেন মাতব্বর নওগাঁয় ডিবি পুলিশের অভিযান ১০১ কজি গাঁজাসহ গ্রেফতার-২ ভূরুঙ্গামারীতে সিটি প্রেস ক্লাবের নবনির্বাচিত সভাপতি হলেন সাংবাদিক কাজল ও সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক রফিকুল নেত্রকোনায় জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে ১ টি বাড়ি ঘিরে রেখেছে পুলিশ পিস্তল উদ্ধার নওগাঁয় বজ্রপাতে তিন জনের মৃত্যু আমরা সবার ” সংগঠনের পক্ষ থেকে ৬০ টি পরিবারের মাঝে কৈ মাছ বিতরণ

ভৈরবের র‍্যাবের হাতে আটক নান্দাইলের হত্যা মামলার নারী আসামির মৃত্যু

সোহাগ গাজী, ময়মনসিংহ

ভৈরবের র‍্যাবের হাতে নান্দাইল থেকে আটক সুরাইয়া খাতুন (৪২) নামে এক হত্যা মামলার আসামির মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৬ মে) রাত ৯ টায় তাকে ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ মহাসড়কের নান্দাইল থানার সামনে থেকে আটক করে ভৈরব র‍্যাব ক্যাম্পে নিয়ে যাওয়া হয়। গত শুক্রবার (১৭ মে) সকাল ৭টায় তাকে ভৈরব স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

সুরাইয়ার পরিবারের দাবি, তাকে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়েছে। তবে র‍্যাব বলেছে, গরমে অসুস্থ হয়ে বা হৃদরোগে মারা গেছেন তিনি।
সুরাইয়া খাতুন নান্দাইলের চন্ডিপাশা ইউনিয়নের বরুনাকান্দা গ্রামের আজিজুল ইসলামের স্ত্রী। সুরাইয়া, তার স্বামী ও ছেলে নান্দাইলের গৃহবধূ রেখা আক্তার হত্যা মামলার আসামি। রেখা আক্তার সুরাইয়ার ও আজিজুল এর পুত্রবধূ। রেখার স্বামী তাইজুল বর্তমানে র‍্যাবের হাতে আটক।

জানা গেছে, দেড় বছর আগে নান্দাইল উপজেলার চর ভেলামারি গ্রামের হাসিম উদ্দিনের মেয়ে রেখার সঙ্গে তাইজুলের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে তাইজুল দুই লাখ টাকা যৌতুকের জন্য রেখাকে চাপ দেয়। একপর্যায়ে ১ লাখ ৮০ হাজার টাকা দেওয়া হয় তাকে। পরে আরও এক লাখ টাকা দাবি করে তাইজুল। এরই মধ্য রেখা অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। ২৬ এপ্রিল রাতে রেখাকে যৌতুকের টাকার জন্য তার স্বামী, শ্বশুর ও শাশুড়ি নির্যাতন করে। রাতেই তাকে ইশ্বরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। এ সময় তার স্বামী ও শাশুড়ি লাশ রেখে পালিয়ে যায়। শ্বশুর আজিজুলকে হাসপাতালের কর্মচারীরা আটক করে পুলিশে সোপর্দ
করেন। পরে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। এরপর ২ মে রেখার মা রমিছা বেগম ময়মনসিংহের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ ট্রাইব্যুনালে তিনজনকে (স্বামী, শাশুড়ি ও শ্বশুর) অভিযুক্ত করে মামলা করেন। আদালতের বিচারক শুনানি শেষে নান্দাইল থানার ওসিকে মামলাটি তদন্তের নির্দেশ দেন। পরে ১৩ মে নান্দাইল থানায় মামলাটি রেকর্ড করা হয়। তদন্ত করছেন থানার এসআই নাজমুল হাসান।
তদন্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত এসআই নাজমুল হাসান জানান,
বৃহস্পতিবার রাত ৯টায় সুরাইয়ার স্বামী আজিজুল ফোন কলের মাধ্যমে জানায় থানায় আসার পূর্বেই তার স্ত্রী সুরাইয়সকে র‍্যাব সদস্যরা আটক করেছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে র‍্যাব-১৪ ক্যাম্পের কমান্ডার ফাহিম ফয়সাল কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি। পরে (১৭ মে) সন্ধ্যা ৬টায় ময়মনসিংহের র‍্যাব কমান্ডার মো. মহিবুল ইসলাম খান এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানান, সুরাইয়া নান্দাইলের একটি হত্যা মামলার আসামি। বৃহস্পতিবার রাতে তাকে ও তার ছেলেকে নারায়ণগঞ্জ থেকে আটক করা হয়। পরে ভৈরব ক্যাম্পে আনার পর গরমে অসুস্থ বা হৃদরোগে আক্রান্ত হলে সকালে তাকে হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যায়। ময়নাতদন্তে তা প্রমাণ হবে। বিষয়টি আইনি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

সুরাইয়ার স্বামী আজিজুল ইসলাম গণমাধ্যম কে বলেন, “আমাদের র‍্যাবের হাতে তুলে দিতেই এসআই নাজমুল হাসান থানায় ডেকে এনেছিল। র‍্যাব হেফাজতে নির্যাতনে আমার স্ত্রীকে হত্যা করা হয়েছে। আমি এ বিষয়ে আদালতে মামলা করব। আমি বিচার চাই।”

সুরাইয়া খাতুন’র শাশুরী আনুরা বেগম বলেন, “ভালো মানুষটাকে রাইতে নিয়া গেলো, সকালই কি করে মরে? তারা সুরাইয়ারে জানাযায় কাফন পরাইয়া লইয়া আইছে। আমাদের ভালোভাবে দেখতেও দিলো না!”

এ বিষয়ে নান্দাইল মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল মজিদ এর সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তিনি ফোন রিসিভ করেনি।

১৮মে দুপুর ১.৪০ মিনিটে সুরাইয়ার মরদেহ আজিজুল ইসলামের বাড়িতে নিয়ে আসলে পারিবারিক কবর স্থানে ২টা ১০মিনিটে জানায়া সম্পন্ন করে সমাধি করা হয়েছে।

এই বিভাগের আরো খবর
© All rights reserved © 2021 rmcnewsbd
Theme Developed BY Desig Host BD