1. rana.bdpress@gmail.com : admin :
  2. admin@dailychandpurjamin.com : mazharul islam : mazharul islam
  3. rmctvnews@gmail.com : adminbd :
বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৭:৪৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
মিজানুর রহমান আকন্দ টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজে অমর ২১ ফেব্রুয়ারি প্রভাতফেরী ও পুষ্পস্তবক অর্পন বাকেরগঞ্জে যথাযোগ্য মর্যাদায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন ইয়াংছা উচ্চ বিদ্যালয়ে মহান আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে অতিরিক্ত আইজিপি হলেন বাকেরগঞ্জের কৃতি সন্তান বশির আহমেদ বাড়ি থেকে বের হয়ে আর ফেরা হলোনা কলেজ শিক্ষার্থী লাকির বান্দরবান জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে ইয়াংছা বাজারে অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে নগদ অর্থসহ ত্রাণ সামগ্রী ভিতরণ লামার ইয়াংছা বাজারে ভয়াবহ আগুন, কয়েক কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি শ্রীপুরে, মাওনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গ্রেফতার ভুল তথ্য প্রকাশের প্রতিবাদ জানিয়ে লামায় ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নুরুল হোসাইন চৌধুরী’র সংবাদ সম্মেলন কুড়িগ্রামে মাদক বিরোধী জনসচেতনতা সভা ও প্রীতি ক্রিকেট টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত

লকডাউন চলাকালীন সময়ে এনজিও কিস্তি ঋণ আদায় বন্ধ থাকবে – জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সাতক্ষীরা

সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসনের অনুরোধ অমান্য করে সাতক্ষীরায় কঠোর লকডাউনের মধ্যেই এনজিওগুলো ঋণের কিস্তি আদায় করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত ১০ জুন সাবেক জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল ফেসবুকে পোস্ট করেছিলেন, ‘লকডাউন চলাকালে ক্ষুদ্রঋণ আদায় কার্যাক্রম বন্ধ রাখার জন্য সংশ্লিষ্টদেরকে অনুরোধ করা হলো।’ তবে, অভিযোগ রয়েছে লকডাউন চলাকালীন এনজিও প্রতিষ্ঠানগুলোর ক্ষুদ্র ঋণ আদায় কার্যক্রম বন্ধ রাখেনি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক গ্রাহকরা জানান, সমিতির নাম বলে বিপদে পড়তে চাই না। আগের মতোই এখনো সাপ্তাহিক কিস্তি আদায় করছে। স্থানীয় এনজিও যেমন কিস্তি আদায় করছে, তেমনি জাতীয়ভাবে প্রতিষ্ঠিত প্রতিটি বড় এনজিও একই কাজ করছে। ভুক্তভোগী ঋণ গ্রহীতারা বলেন, আমরা বিভিন্ন সংস্থা থেকে ঋণ নিয়ে ব্যবসা ও ছোটোখাট গাড়ি কিনে তা চালিয়ে জীবিকা নির্বাহসহ ঋণের কিস্তি দিয়ে আসছি কিন্তু করোনাকালীন লকডাউনে ব্যবসা বাণিজ্য প্রায় পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যাওয়ায় সংসার চালাতেই হিমশিম খাচ্ছি। লকডাউনে কয়েক সপ্তাহ বাড়ি বসে আছি, কোনো আয়-রোজগার নেই। ধার দেনা করে সংসার চলছে, কিস্তি কিভাবে দেবো ভেবে পাচ্ছি না। লকডাউনের সময় কিস্তি বন্ধ না করলে আমাদের না খেয়ে মরতে হবে। দীর্ঘদিন চলমান লকডাউনের কারণে এ জেলার বেশির ভাগ মানুষ কর্মহারা হয়ে বর্তমানে অভাব অনটনে দিন কাটাচ্ছে। বন্ধ হয়ে গেছে ব্যবসা বাণিজ্য ও দৈনন্দিন আয় রোজগার। এমন পরিস্থিতিতে স্ত্রী-সন্তানসহ পরিবার পরিজনদের মুখে দুই বেলা দু-মুঠো খাবার তুলে দিতেই হিমশিম খাচ্ছে নিম্ন আয়ের মানুষ। এ অবস্থার মধ্যেও তারা এনজিওর ঋণের কিস্তি দিতে গিয়ে পড়েছেন চরম বিপাকে। বিভিন্ন উপজেলায় ঋণ কার্যক্রম চালানো এনজিওগুলো বর্তমানে সর্বোচ্চ মাত্রায় ঋণ কার্যক্রম পরিচালনা ও নিয়মিত কিস্তি আদায় করছে বলে একাধিক অভিযোগও পাওয়া গেছে। এ ছাড়া সমাজসেবা ও সমবায় অধিদফতর থেকে নিবন্ধন নিয়ে ব্যাঙের ছাতার মতো গজিয়ে ওঠা বেশ কয়েকটা এনজিও বেআইনিভাবে করোনাকালেও লকডাউন উপেক্ষা করে চড়া সুদে ঋণের কিস্তি আদায়ের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। এমন সব অভিযোগ আসায় বর্তমান সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির তাঁর ফেসবুকে পোস্ট করেছেন, ‘লক ডাউন চলাকালীন সময়ে এনজিও কিস্তি ঋণ আদায় কার্যক্রম বন্ধ থাকবে।’ মঙ্গলবার তিনি এ ধরনের পোস্ট করায় সাতক্ষীরাবাসী মনে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফিরে পেয়েছে। অনেকেই সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ হুমায়ুন কবিরকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানিয়ে কমেন্টও করেছেন।

এই বিভাগের আরো খবর
© All rights reserved © 2021 rmcnewsbd
Theme Developed BY Desig Host BD